ধূমপানের চেয়েও কাবাবে ক্যানসার ঝুঁকি বেশি.!

0

রান্না এখন গৃহিণীর রান্নাঘরের চৌহদ্দি পেরিয়ে শিল্পের পর্যায়ে পৌঁছে গেছে। এর মধ্যে কাবাব একটি। চাহিদার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে কাবাবের আইটেম। রসনা বিলাসীদের কাছে কাবাব এখন জনপ্রিয় খাবার। যদিও বাংলাদেশিদের কাছে কাবাব এক ঐতিহ্যবাহী খাবার।

কাঠকয়লার কম আঁচে সারি সারি শিকে গাঁথা মশলাদার মাংসখণ্ড। মনকাড়া সুঘ্রাণের হাতছানি, ভোজনরসিকদের পাগল করে তুলে। তবে এ খাবারে বাধ সেধেছে চিকিৎসকরা। তাদের মতে, আগুনে ঝলসানো লবন-মশলা মাখানো মাংস বা মাছ থেকে নিসৃত রাসায়নিক আপনার জন্য ডেকে আনতে পারে প্রাণঘাতী ক্যানসার। কারণ চর্বিযুক্ত লবন মাখানো মাংস সরাসরি কাঠ বা কয়লার আগুনে পোড়ানো হলে তাতে আলকাতরা জমে, যা শরীরে ক্যানসার উৎপাদনকারী।

এ প্রসঙ্গে কানাডার ভ্যাংকুভারের সরকারি হাসপাতালের চিকিৎসক এসএম চন্দ্রমোহন জানান, সরাসরি আগুনের উপর মাছ-মাংস পোড়ানো হলে তার উপর জমে ওঠে ক্যানসার উৎপাদক রাসায়নিক। যা ধূমপান বা মদ্যপানের চেয়েও ক্ষতিকর।

ওই হাসপাতালে ১০১ রোগীর উপর একটি গবেষণা করা হয়। গবেষণায় ওই রোগীদের খাদ্যাভ্যাসসহ জীবন যাপনের সব বিষয় নিয়ে প্রশ্ন করা হয়। এতে দেখা গেছে, যারা নিয়মিত কাবাব জাতীয় খাবার খান তাদের ক্যানসার হওয়ার প্রবল সম্ভাবনা ৯ গুণ। এছাড়া যাদের ধূমপানের অভ্যাস রয়েছে তাদের ৮ গুণ সম্ভাবনা। অন্যদিকে মদ্যপানের অভ্যাসে ক্যানসারের সম্ভাবনা ৪ গুণ।

তাই বাঁচতে হলে এসব কাবাব জাতীয় খাবার দূরে থাকার অভ্যাস করুন।

Share.

Leave A Reply