ঝাল ঝাল কুমড়োর ডাল রেসিপি

0

রোজকার একঘেয়ে কুমড়ো ভাজি বা তরকারি আর ডালকে দিন মেইকওভার।  দুটো মিলিয়ে তৈরি করে ফেলুন ঝাল ঝাল কুমড়োর ডাল। খেতে যেমন মজা, পুষ্টিগুণেও অনন্য এই খাবারটি।

প্রস্তুতির সময় – ১৫ মিনিট

রান্নার সময় – ৪০ মিনিট

উপকরণ

কুমড়ো (টুকরো করা) – ১ কেজি

মসুর ডাল – ১/২ কেজি

চিকেন স্টক – ১ লিটার

অলিভ অয়েল – ২ টেবিল চামচ

বড় পেঁয়াজ (টুকরো করা) – ২ টি

কাঁচা মরিচ – ৩-৪ টি

রসুন – ৪ কোয়া

আদা টুকরো – ২টি

ধনে পাতা কুঁচি – ১/২ কাপ

পানি – ১ কাপ

মশলা

ভাজা জিরা – ২ টেবিল চামচ

কারি পাতা – ৬-৭ টা

ভাজা ধনে – ২ টেবিল চামচ

গোলমরিচ গুঁড়ো – ১ টেবিল চামচ

কারি পাউডার – ২ টেবিল চামচ

পরিবেশনের জন্য

ফেটানো টক দই – ১/২ কাপ

ধনে পাতা কুঁচি – ১/২ কাপ

প্রণালী

ব্লেন্ডারে ১ চামচ তেল, পেঁয়াজ, মরিচ, আদা, রসুন, ধনে পাতা, লবণ আর পানি দিয়ে ব্লেন্ড করে নিতে হবে। জিরা, ধনে, কারি পাতা, গোলমরিচ গুঁড়ো ভালোভাবে মিশিয়ে নিতে হবে। বড় পাত্রে বাকি তেল দিয়ে মাঝারি আঁচে কুমড়ো ভাজতে হবে কয়েক মিনিট, এরপরে ডাল দিয়ে সামান্য ভেজে মশলার পেস্ট, গুঁড়ো আর কারি পাউডার দিয়ে কিছুক্ষণ কষিয়ে নিন। এরপরে চিকেন স্টক দিয়ে মাঝারি আঁচে রান্না করুন আরও আধা ঘণ্টা, খেয়াল রাখবেন যেন পাত্রের তলায় লেগে না যায়।  এক চামচ ফেটানো দই আর ধনে পাতা কুঁচি ছড়িয়ে দিয়ে গরম গরম পরিবেশন করুন কুমড়োর ডাল। এটা নান বা পরোটা দিয়ে খেতে খুবই সুস্বাদু। খেতে পারেন ভাত বা পোলাওয়ের সঙ্গেও

পুষ্টিবিদ শায়লা নাসরীনের মতে ঝাল কুমড়োর ডাল যেমন সুস্বাদু, তেমনি পুষ্টিকর। এতে প্রচুর পানি, ফাইবার, ভিটামিন এ, প্রোটিন আছে। কিন্তু ক্যালোরির পরিমাণ খুব কম। হৃদরোগীদের জন্য এটা খুবই স্বাস্থ্যকর একটি খাবার। হজমের জন্য এই ডাল খুবই ভালো।

Share.

Leave A Reply