কোরবানীর ঈদে মাংস সংরক্ষনের উপায়

0

কিছু দিন পরেই আসছে কোরবানির ঈদ। কোরবানির ঈদের সারাদিন ধরেই সবার ঘরে চলে কোরবানির মাংস রান্না। কোরবানির ঈদে রান্নাঘরের ব্যস্ততা একটু বেশি থাকে। আবার ঈদের দিনে এই বিপুল মাংস সংরক্ষন করাও বেশ কঠিন হয়ে পড়ে। তাই আসুন আগে থেকেই জেনে নিই কীভাবে মাংস সংরক্ষন করা যায়। মাংস সংরক্ষনের কিছু প্রয়োজনীয় টিপসঃ

★ মাংস সংরক্ষণের জন্য ফ্রিজ খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তাই আগে থেকেই ফ্রিজ পরিষ্কার করে মাংস রাখার জন্য আলাদা জায়গা করে রাখুন।

★ ফ্রিজে পুটলি করে মাংস না রেখে যদি বিছিয়ে প্যাকেট করা হয় তবে বেশিদিন সংরক্ষন করা যায়।

★ মাংস কেটে পরিষ্কার করে, আদা, রসুন, পেঁয়াজ বেশি করে দিয়ে মেখে মাংস জ্বাল দিন। একদিন অন্তর মাংস জ্বাল দিলে, ১৫-২০ দিন মাংস ভালো থাকবে।

★ মাংস লম্বা লম্বা করে টুকরা করে, লবণ, হলুদ মেখে রেখে রোদে শুকিয়ে নিন। এবার এগুলো তেলে ভেজে খেতে পারেন বা রান্নার আগে ভিজিয়ে নিতে পারেন।

★ মাংস টুকরা কাঁটাচামচ বা ছুরি দিয়ে কেঁচে, এবার লবণ ও লেবুর রসের মিশ্রণে ডুবিয়ে নিন। যাতে ভালোভাবে মিশ্রণ মাংসের ভেতর ঢোকে। এভাবে রাখলে মাংস অনেকদিন ভালো থাকবে।

★ কিছু সলিড মাংস সেদ্ধ করে কাবাবের জন্য রেডি করে রাখা যেতে পারে।

★ মাংস বড় বড় টুকরো ও কিছু মাংস কুচি করে কিমা হিসেবে সংরক্ষণ করা যায়।

★ চর্বিযুক্ত মাংস সাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর, তাই মাংস কাটার সময় চর্বি কেটে নেয়াই ভালো।

★ মনে রাখতে হবে কোরবানির ঈদে মাংস কাটাকাটি, গুছিয়ে রাখা, রান্না করা ইত্যাদি নানা কারণে রান্নাঘর নোংরা বেশি হয়। আর কাঁচা রক্তের গন্ধও থাকে বেশ। তাই মাংস কাটার পর ময়লা সঙ্গে সঙ্গে ফেলে দিন। চুলা থেকে শুরু করে রান্নাঘর ভালভাবে পরিষ্কার করুন।

বিঃ দ্রঃ মজার মজার রেসিপি ও টিপস, রেগুলার আপনার ফেসবুক টাইমলাইনে পেতে লাইক দিন আমাদের ফ্যান পেজ বিডি রান্নাঘরে।

Share.

Leave A Reply