অতুলনীয় রসুনের অন্যরকম একটি রেসিপি এবং কিছু অজানা উপকারিতা

0

রসুন নিশ্চিত ভাবেই একটি স্বাস্থ্যকর খাবার এবং জনপ্রিয় ভেষজ ঔষধ হিসেবেও এটি পরিচিত। জেনে অবাক হবেন যে রসুনের উপর অনেক বইও লেখা হয়েছে। এটি এমন একটি মশলা যা আমাদের প্রতিদিনের রান্না ও খাবারের জন্য প্রয়োজন। এই অসাধারণ ও অতুলনীয় এই ভেষজ উদ্ভিদটি কিছু গুণাগুণ এবং রেসিপি তুলে ধরছি।

অনেক কিছুর নিরাময়ে রসুনের গুণাগুণ আমাদের ধারনার বাইরে। এটি কাঁচা, রান্না করে বা অনেক সময় গুঁড়ো বা পেস্ট করে ব্যবহার করা হয়। রান্নায় স্বাদ বাড়ানোর পাশাপাশি এটি ভেষজ ঔষধ হিসেবে অনেক সময় বড়দের জন্য দিনে ১/২ কোয়া ১/২ বার এবং তুলনামূলকভাবে ছোটদের জন্য আর একটু কম পরিমান সুপারিশ করা হয়ে থাকে।

এখানে রসুনের কিছু রোগ নিরাময়ক কিছু গুনাগুনের কথা উল্লেখ করা হলো যা হয়তো অনেকেরই অজানা-

  • –   অনেক গবেষণায় প্রমানিত হয়েছে যে রসুন গর্ভস্থ শিশুর ওজন বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে। তাই গর্ভাবস্থায় খাবারের সাথে পরিমিত পরিমানে কিছু রসুন খান। তবে গর্ভাবস্থার শেষ দিকে রসুন খাবেন না।
  • –   রসুন রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে শক্তিশালী করে বুকের প্রদাহ, কাশি ও শ্বাস কষ্ট ভালো করতে সাহায্য করে।
  • –   রসুনে অনেক বেশি পরিমান আয়োডিন থাকে ফলে যাদের হরমোনের সমস্যা থাকে তাদের জন্য খুবই কার্যকরী। হরমোনের সমস্যার চিকিৎসায় রসুন বেশ উপকারী ভূমিকা রাখে।
  • –   হৃদরোগের চিকিৎসায় এবং এর ঝুঁকি কমাতে নিয়মিত রসুন খেতে পারেন। দেহে রসুনের প্রভাব এলডিএল বা খারাপ কোলেস্টেরলের মাত্রা কমাতে সাহায্য করে। এছাড়া রক্তনালীতে যে তলানি জমে তা এই বিস্ময়কর মশলাটি কমাতে পারে।
  • –   ছত্রাকের সংক্রমণ এবং ভেজাইনাল ইনফেকশন খুব সহজেই নিরাময় করতে পারে এই রসুন।
  • –   রসুনে Allicin নামক একটি উপাদান থাকে যা প্রাকৃতিক অ্যান্টিবায়োটিক নামে পরিচিত। প্রচলিত আছে যে প্রথম বিশ্বযুদ্ধের সময় সৈন্যদের ক্ষত সারাতে রসুন ব্যবহার করা হতো।
  • –   রসুন ভিটামিন সি এবং বি৬ এর চমৎকার একটি উৎস যা আমাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে শক্তিশালী করতে এবং মুড ভাল রাখার জন্য প্রয়োজনীয়।
  • –   এটি বিভিন্ন ধরনের ক্যান্সার প্রতিরোধে কাজ করে। রসুনে diallyl sulphide এর উপস্থিতির কারনে এর রয়েছে অ্যান্টিক্যান্সার গুনাগুন। বিভিন্ন গবেষণা থেকে দেখা যায় যে এই diallyl sulphide ক্যান্সার সেলকে রূপান্তরে বাধাদেয়।
  • –   রসুনের মাঝে থাকা কিছু যৌগ যেমন, diallyl sulphide ও thiacremonone এর কারণে রসুনের রয়েছে অ্যান্টিআর্থ্রাইটিক গুনাগুন। এই যৌগগুলোর কারনে রসুন অ্যালার্জি জনিত শ্বাসনালীর প্রদাহ নিরাময় করতে সহায়তা করে। কাঁচা রসুনের রস ব্যবহারের ফলে পোকার কামড় বা র‍্যাশের কারনে যে চুলকোনির সৃষ্টি হয় সেটি কমিয়ে দেয়।

রসুনের একটি অন্যরকম রেসিপি

রসুন আমাদের প্রতিদিনের বেশির ভাগ খাবারেই ব্যবহার করা হয়ে থাকে। রসুনের একটি অন্য ধরনের রেসিপি আপনাদের সাথে শেয়ার করব-

রোস্টেড গার্লিক

  • –   বড় আকারের কয়েকটা রসুন ধুয়ে নিয়ে উপরের বাড়তি কোনো খোসা থাকলে সেটি ফেলে দিয়ে আস্ত রেখেই নিচের দিকের ১/৪ বা ১/২ ইঞ্চি কেটে ফেলুন।
  • –   একটি বেকিং প্যানের কাটা দিকটা উপরের দিকে রাখুন। সব চাইতে ভাল হয় যদি মাফিন প্যান নেয়া হয়। তারপর প্রতিটি রসুনে এক চামচ করে অলিভ অয়েল দিয়ে ফয়েল পেপার দিয়ে মুড়িয়ে নিয়ে প্রিহিট করা ওভেনে ২০০ ডিগ্রীতে ৩০-৩৫ মিনিট বা নরম না হয়া পর্যন্ত বেক করুন।
  • –   ঠাণ্ডা হওয়ার পর কোয়া থেকে রসুন গুলোকে ছুড়ি বা কাটা চামচ দিয়ে চাপ দিয়ে বের করে নিন।
  • – এবার এই রোস্টেড গার্লিক চাইলে এমনিতেও খেতে পারেন, পাউরুটি দিয়ে খেতে পারেন, চটকে নিয়ে কোনো রান্নায় দিতে পারেন, স্যুপে, বেক করা আলুতে মিশিয়ে খেতে পারেন বা পাস্তা সসে মেশাতে পারেন।
লিখেছেন

শওকত আরা সাঈদা(লোপা)

জনস্বাস্থ্য পুষ্টিবিদ

এক্স ডায়েটিশিয়ান,পারসোনা হেল্‌থ

খাদ্য ও পুষ্টিবিজ্ঞান(স্নাতকোত্তর)(এমপিএইচ)

মেলাক্কা সিটি, মালয়েশিয়া।

 

Share.

Leave A Reply