২৫ সপ্তাহে ২৫ কেজি কমালেন, কীভাবে এই কঠিন কাজটি করলেন আমির?

0

আমির খানকে ‘দঙ্গল’ ছবির জন্য কতটা কঠিন পরিশ্রম করতে হয়েছে তা ইতিমধ্যেই বহুবার আলোচিত হয়েছে সংবাদমাধ্যমে। প্রথমে বৃদ্ধ মহাবীর ফোগাট-এর চরিত্রের জন্য দেহের ওজন বাড়িয়ে, রীতিমতো বড়সড় একটা ভুঁড়ি বাগাতে হয়েছিল আমিরকে। তার পরে আবার মহাবীর ফোগাট-এর অল্পবয়সের ভূমিকায় অভিনয়ের জন্য সেই ভুঁড়ি কমিয়ে, সিক্স প্যাক বানাতে হয় তাঁকে। এর জন্য ঝরাতে হয়েছিল ২৫ কেজি ওজন।

ggggচরিত্রের প্রয়োজনে ওজন বাড়ানো-কমানো বলিউডে খুব বেশি না হলেও হলিউডে কিন্তু এই ট্রেন্ড প্রবল। ‘কিল বিল’ সিরিজের জন্য উমা থুরম্যানকে প্রথমে ৫৮ পাউন্ড ওজন বাড়াতে হয়। তার পর নিজের স্বাভাবিক ওজন ও চেহারায় ফিরতে অত্যন্ত বেগ পেতে হয়েছিল তাঁকে। প্রথম চটকায় ৩৫ কেজি ঝরিয়ে ফেললেও বাকি ওজন ঝরাতে অনেক সময় লেগেছিল উমার। কিছুদিন আগে ‘সুলতান’ ছবির জন্যেও সালমন এই কঠিন ওয়েট গেইন অ্যান্ড লস রুটিনের মধ্যে দিয়ে গিয়েছিলেন। ছবিতে তিনটি পর্যায়ে সুলতানকে দেখা যায়। তার জন্য সালমান মোটামুটিভাবে ৮০ কেজি ওজন থেকে ১০০ কেজি পর্যন্ত দেহের ওজন বাড়িয়েছিলেন।

‘দঙ্গল’ ছবির জন্য আমিরকে শুধুই যে ওজন কমাতে হয়েছে তা নয়, একটা আস্ত ভুঁড়ি ঝরিয়ে মেদহীন সিক্স প্যাকে ফিরতে হয়েছে। কীভাবে এই কঠিন কাজটি করলেন তিনি? এই বিষয়ে তাঁকে গাইড করেছেন ফিটনেস ট্রেনার রাহুল ভট্ট ও রাকেশ উড়িয়ার। এক্সারসাইজ তো ছিলই কিন্তু ব্যালেন্সড ডায়েটই ছিল মূল কথা। আমিরের এই ওজন কমানো নিয়ে একটি ভিডিও ইউটিউবে প্রকাশ করেছে ইউটিভি মোশন পিকচার্স। ‘ফ্যাট টু ফিট’ শীর্ষক এই ভিডিওটি কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই ভাইরাল হয়ে গিয়েছে।

পরিকল্পনামাফিক ওজন বাড়ানো-কমানোতে আমির সাহায্য নিয়েছিলেন বিখ্যাত ডায়টিশিয়ান নিখিল ধুরন্ধর-এর। প্রথমদিকে ওজন বৃদ্ধির সময়ে আমিরকে তিনি প্রতিদিন ক্যালোরিযুক্ত খাবার খেতে বলেন। আমির সেই সুযোগের সঠিক সদ্ব্যবহার করেছেন। ব্রাউনি, সিঙাড়া, চকলেট, আইসক্রিম, কেক— কোনও কিছু ছাড়েননি। তার পরের পর্যায়টিই ছিল সবচেয়ে শক্ত। আমির জানিয়েছেন যে এর জন্য তিনি ক্যালোরি কাউন্ট পদ্ধতি অবলম্বন করেছিলেন। এই পদ্ধতিতে ওজন কমানোর ক্ষেত্রে ৫০ শতাংশ ভূমিকা রয়েছে ডায়েটের, ২৫ শতাংশ ভূমিকা এক্সারসাইজের এবং বাকি ২৫ শতাংশ পর্যাপ্ত বিশ্রাম।

আমিরের মতে, ক্যালোরি ইনটেককে যদি ১০০ শতাংশ ধরা হয় তবে তার ২০ শতাংশ আসা উচিত ফ্যাটজাতীয় খাবার থেকে, ৩০ শতাংশ আসা উচিত প্রোটিনজাতীয় খাবার থেকে এবং বাকি ৫০ শতাংশ কার্বোহাইড্রেট থেকে। প্রচলিত ধারণা রয়েছে যে ওজন কমাতে কার্বোহাইড্রেট জাতীয় খাবার এড়িয়ে গেলেই ভাল কিন্তু আমির একেবারেই তার উল্টো পদ্ধতিই অবলম্বন করেছেন। হাতে-নাতে তার ফলও যে পেয়েছেন সেটা তাঁর সিক্স প্যাক দেখেই বোঝা যাচ্ছে। ওজন কমানোর সময় দিনে ২৫০০ কিলো ক্যালোরি ইনটেক করতেন আমির কিন্তু এক্সারসাইজের মাধ্যমে অনেকটা ক্যালোরি ঝরিয়েও ফেলতেন।

এ তো গেল ক্যালোরি কাউন্টের হিসেব। কিন্তু ঠিক কী খেতেন আমির? সেই ডায়েটের কিঞ্চিৎ জানা গিয়েছে। যেমন তিনি ব্রেকফাস্টে খেতেন ২৫ গ্রাম উপমা ও ১০০ গ্রাম পেঁপে। তার কিছুক্ষণ পরে প্রোটিন শেক ও মাত্র একটি ব্রেডস্লাইসের টুনা স্যান্ডউইচ। আবার লাঞ্চে ৩০ গ্রাম আটার রুটি ও সবজি। সব মিলিয়ে দিনে ৯ বার খেতেন আমির কিন্তু সেই খাওয়াটা একেবারেই ছকে বাঁধা, কোনও এদিক-ওদিক নেই। এছাড়া নিয়মিত জগিং, সাঁতার, যোগাভ্যাস তো ছিলই। আরও বিশদে জানতে ক্লিক করুন নীচের এই ভিডিওতে, যেটি এখন ভাইরাল ইউটিউব এবং সোশ্যাল মিডিয়ায়-

দেখুন ভিডিওতে

Share.

Leave A Reply