মজাদার টমেটোর খাট্টা / টমেটোর ঝোল রেসিপি

0

আজকের এই সহজ রান্না দেখি, এমন রান্না আগেও দেখানো হয়েছে তবে ওই যে বলছি রান্না মানে অংক, পাটিগণিত! আগে একটু ভিন্নভাবে দেখানো হয়েছে, এবার আরো আরো সহজ করে দেখানো হল। হ্যাঁ, টেমেটোর টক রান্না বা টমেটো খাট্টা! পাতলা ডালের বদলে দারুন লাগে, বিশেষ করে গরমের দিনে বা শীতের দুপুরে এই টক দিয়েও এক প্লেট সাটিয়ে দিতে পারবেন। চলুন দেখে ফেলি!

দেখে ও বেছে বেছে পাকা টমেটো গুলো নিন।

পরিমান ও উপকরন

(পরিমান আপনিও অনুমান করতে পারেন, অনুমানিক মাঝারি এক বাটির জন্য বা এক লিটারের জন্য)
– টমেটো, গোটা ৬/৭ মাঝারি, পাকা হলেই ভাল
– রসুন চেঁচা, এক চা চামচ
– পেঁয়াজ চেঁচা, এক চা চামচ
– কাঁচা মরিচ, কয়েকটা
– লাল মরিচ গুড়া, হাফ চা চামচ
– তেল, ৭/৮ চা চামচ বা কম বেশি
– লবন, পরিমান মত
– চিনি, হাফ চা চামচ (আপনার ইচ্ছা, না দিলে নাই)
– পানি, এক লিটার বা এক বাটি (ঘনত্ব আপনি নিজেই এই পানি দিয়ে নির্ধারন করতে পারেন)
– ধনিয়া পাতার কুঁচি, দুই চা চামচ বা কম বেশি।

প্রস্তুত প্রনালী

(ছবি কথা বলে)


ছবি ১, কড়াইতে তেল গরম করে তাতে রসুন ও পেঁয়াজ চেঁচা দিন, সামান্য লবন যোগে ভাল করে ভাঁজুন।


ছবি ২, এমনি হলদে হয়ে আসবে।


ছবি ৩, এবার টমেটো (আগেই কেটে ধুয়ে রাখতে হবে) দিয়ে দিন। কাঁচা মরিচ গুলো চিরে দিয়ে দিতে পারেন। আগুন মাধ্যম আঁচে থাকবে।


ছবি ৪, এবার লাল মরিচ গুড়া দিন।


ছবি ৫, ভাল করে নাড়িয়ে মিশিয়ে নিন।


ছবি ৬, আগুন মাধ্যম আঁচে রাখুন।


ছবি ৭, সময় বাঁচাতে ঢাকনা দিয়ে দিন। এই ঢাকনার কারনে টমেটো দ্রুত সিদ্ধ হয়ে নরম হয়ে পড়বে। চুলার ধার ছেড়ে যাবেন না, সামান্য ভুলে পানি শুঁকিয়ে পুড়েও যেতে পারে!


ছবি ৮, আপনি ঘুটনী বা দজ্জি বা চামচ দিয়ে টমেটো গুলো গলিয়ে নিতে পারেন।


ছবি ৯, এবার আপনি আপনার প্রয়োজনীয় পানি দিন। আমরা মোটামুটি এক লিটার পানি দিয়েছিলাম (কম হতে পারে)।


ছবি ১০, এবার চিনি দিয়ে দিন। (অনেকে চিনি দিতে চান না, না দিলে নাই, তাতেও স্বাদ কম হবে না!)


ছবি ১১, আগুন মাধ্যম আঁচে থাকবে। ভাল করে এবার ঘুটা দিয়ে দিন। কাজটা সাবধানে করতে হবে, যাতে চিটা হাতে বা পেটে না লাগে! (সোনার শরীরে দাগ ফেলা যাবে না!)


ছবি ১২, আগুন একটু বাড়িয়ে দিতে পারেন। ফাইন্যাল লবন দেখুন, লবন স্বাদ মত না হলে দিন। লবনের স্বাদ এখানে বিরাট ফ্যাক্টর! হা হা হা…


ছবি ১৩, ব্যস প্রস্তুত। পরিবেশনের জন্য।

Share.

Leave A Reply