যে কোন মাছের মজাদার সহজ ভর্তা রেসিপি।

0

আজ বিডি রান্নাঘর আপনাদের খুব সহজ আর মজাদার একটা সাধারন ভর্তার রেসিপি দেখাবে। আপনাদের হাতের কাছে থাকা যে কোন বড় মাছের টুকরা দিয়ে এই ভর্তা বানিয়ে ফেলতে পারেন। সময় মিনিট ১৫ লাগবে। মাছের টুকরায় বা গুলোতে সামান্য হলুদ মরিচ গুড়া এবং লবন মাখিয়ে আগে রেখে দিতে পারেন, তার পর সোজা ভেঁজে ফেলুন। এই ভাঁজা মাছ দিয়েই আজকের ভর্তা। এমন ভর্তা সাধারনত মুখে অনেক রুচি এনে দেয়! যখনার কিছু খেতে ইচ্ছা হয় না, তখন এমন ভর্তা আপনার মুখে রুচি এনে দিবে, সামান্য একটু ঝাল হলে তো কোন কথাই নেই! পাক্কা তিন প্লেট চলিয়ে দিতে পারবেন।  চলুন!

উপকরন

(পরিমান আপনি নিজেই নির্ধারন করতে পারেন)
– মাছের টুকরা ভাঁজা, আমরা রুই মাছ নিয়েছিলাম, দুই টুকরা, সামান্য লবন, হলুদ ও মরিচ গুড়া দিয়ে খুব কম তেলে ভেঁজে নিতে হবে (মাছ ভাঁজার রেসিপি গুলো দেখে নিতে পারেন)
– পেঁয়াজ কুচি, কাঁচা বা ভেঁজেও নিতে পারেন
– শুকনা মরিচ ভাঁজা বা কাঁচা মরিচ কুঁচি, ঝাল একটু বেশী হলে ভাল লাগে
– ধনিয়া পাতার কুঁচি, দিন যা লাগে, যদি ভাল লাগে
– লবন পরিমান মত, প্রথমে কম দেয়াই ভাল, পরে দেখে দেয়া যেতে পারে
– সরিষার তেল, কয়েক চামচ

প্রনালী


ছবি ১, মাছ ভেঁজে নিন। বেশি কড়কড়ে ভাঁজা নয়!


ছবি ২, এবার মাছের কাঁটা গুলো আলাদা করে ফেলে দিন।


ছবি ৩, মাছ এভাবে জমিয়ে ফেলুন।


ছবি ৪, এই হচ্ছে পরিমান মত সব উপাদান। এটা সেটা বেশি কম হলে স্বাদ কিছুটা এদিক সেদিক হবে, কিন্তু তাতে কি! তবে লবনের পরিমাণটা বুঝে শুনে দিতে হবে। প্রথমে কম লবন দিয়েই মাখানো শুরু করতে হবে। *কাঁচা পেঁয়াজে যাদের আপত্তি আছে তারা পেঁয়াজ ভেঁজে নিতে পারেন *শুকনা মরিচ না থাকলে কাঁচা মরিচ কুঁচি দিয়েও এই ভর্তা বানাতে পারেন।


ছবি ৫, মরিচ এবং লবন দিয়ে মাখা শুরু করতে পারেন।


ছবি ৬, মাখুন।


ছবি ৭, মাখুন।


ছবি ৮, মলে মলে মাখুন। এই মলাতেই স্বাদ বেরিয়ে আসবে!


ছবি ৯, আহ…।।


ছবি ১০, এবার সরিষার তেল নিন এবং সরিষার তেল দিয়ে ভাল করে মেখে, ফাইন্যাল লবন ও ঝাল স্বাদ দেখুন। লাগলে দিন।


ছবি ১১, ব্যস পরিবেশনের প্রস্তুত। গরম সাদা ভাতের সাথে আরামসে খেতে বসে পড়ুন। ডিলিশিয়ার্স আইটেম। এই দুনিয়াতে ভর্তার উপরে কি কোন কথা আছে, না নাই!

আবারো আপনাদের সবাইকে শুভেচ্ছা। আশা করি, সাথে থাকবেন, আমরা আসছি আরো আরো চরম স্বাদের খাবারের রেসিপি নিয়ে।

Share.

Leave A Reply