মুচমুচে পুঁই পাকোড়া

0

কথায় আছে শাকের মধ্যে ‘পুঁই আর মাছের মধ্যে রুই’। এ থেকে বোঝাই যাচ্ছে ভোজনরসিকদের কাছে এর গ্রহণযোগ্যতা। বাজারে দু’ধরনের  (লাল এবং সবুজ রঙের) পুঁই পাওয়া গেলেও রান্নায় সবুজ পুঁইয়ের ব্যবহার বেশি।আজ এই পুঁই শাক নিয়েই রেসিপি আয়োজন। আচ্ছা , বিকেলের নাস্তায় বা দুপুরে গরম গরম ভাতের সাথে পুঁই পাকোড়া খাওয়া হয়েছে কখনো?  না খাওয়া হয়ে থাকলে আজই ট্রাই করে দেখুন। রান্নার সুবিধার্থে পুরো প্রণালী দেয়া হল।

উপকরণ 

  • পুঁই শাকের শুধু পাতা বড় বড় করে কাটা ১ বাটি
  • বেসন ১ কাপ
  • চালের গুঁড়া ১ টেবিল চামচ
  • কর্ণফ্লাওয়ার ১ চা চামচ
  • মরিচ গুঁড়া আধা চা চামচ
  • হলুদ গুঁড়া আধা চা চামচ
  • জিরা গুঁড়া আধা চা চামচ
  • আস্ত কালোজিরা আধা চা চামচ
  • লবন স্বাদমতো
  • পানি পরিমাণমতো
  • তেল ডুবিয়ে ভাজার জন্য

প্রণালী

( ১ ) প্রথমে কেটে রাখা পুঁই শাকের পাতাগুলো ভালোভাবে ধুয়ে পানি ঝড়ানোর জন্য রেখে দিতে হবে ।

( ২ ) এবার একটি বাটিতে বেসনের সাথে তেল বাদে অন্য সব উপকরণ এক সাথে মিশিয়ে একটি ঘন মিশ্রণ তৈরি করে নিতে হবে । মিশ্রনটা ভালোভাবে স্মুদ করে মেশাতে হবে যেন এর মধ্যে কোন দলা না থাকে । আর মিশ্রনটা বেশি পাতলা করা যাবে না, একটু ঘন হবে বেশি নয় ।

( ৩ ) ভালো স্মুদ মিশ্রন তৈরী হয়ে গেলে ঢেকে রেখে দিন ১০-১৫ মিনিট। ভাজার আগে মিশ্রণটা আবার একটা ছোট চামচের সাহায্যে নেড়ে নিতে হবে ।

( ৪ ) ভাজার সময় তেল গরম করে পুঁই শাকের কাটা পাতা এক সাথে ২-৩টা করে নিয়ে বেসনের মিশ্রনে ভালোভাবে ডুবিয়ে তেলে ছাড়ুন । ছবি দেয়া আছে, দেখলে ভালোভাবে বুঝতে পারবেন । মাঝারি আঁচে ভাজতে হবে । এক সাইড ভাজা হয়ে গেলে উল্টে দিন এভাবে বাদামী করে ভেজে ফেলুন সবগুলো ।

( ৫ ) তেল বেশি গরম হয়ে গেলে চুলার আঁচ কমিয়ে দিন । সাবধানে ভাজুন যেন পুড়ে না যায়, শাক পুড়ে গেলে খেতে ভালো লাগবে না । তেল থেকে তুলে টিস্যুতে রেখে বাড়তি তেল ঝড়িয়ে ফেলুন ।
ব্যস, তৈরী হয়ে গেল গরম গরম মুচমুচে পুঁই শাকের পাকোড়া ।

পরিবেশন

পরিবেশনের আগে গরম গরম ভেজে পরিবেশন করুন দারুন মজার মুচমুচে পুঁই শাকের পাকোড়া । আগে ভেজে রাখতে চাইলে ভেজে ঠান্ডা করে এয়ার টাইট বক্সে ভরে রাখুন । এভাবে আধা ঘন্টা ভাল থাকবে । এই উপকরণে ৬-৭ জনকে পরিবেশন করা যাবে ।

Share.

Leave A Reply