একটি কালো মেয়ের ডায়রি থেকে…

0

আমার জন্ম হল। অন্য সব শিশুর মতই আমার জন্ম হল, সেই একই ভাবে একই শরীর একই হৃদপিণ্ড নিয়ে। অন্য সব শিশুর মতই ভ্রুনে আমার বেড়ে ওঠা, চিৎকার করে পৃথিবীকে জানিয়ে দেয়া ‘আমি এসেছি’ …

কিন্তু তবু আমি অন্য সবার মত হলামনা, জন্ম হয়েই আমার সাথে লেগে গেল একটা ‘কালো’ ট্যাগ । আমার কথা যেই বলুক না কেন তাঁর কথাতেই একটা কিন্তু লেগে গেল। “কেমন হয়েছে মেয়েটা??” “এইতো, ভালই কিন্তু গায়ের রং টা কালো।” আমার ‘মায়াবি হাসি’, ‘বড় চোখ’, ‘উঁচু নাক’, ‘কালো চুল’ কোনকিছু দিয়েই কাউকে ভোলাতে পারলামনা। আমার জন্য সবার মনে একটা ‘ইশ’!!! “ইশ, যদি মেয়েটার গায়ের রং টা একটু উজ্জ্বল হত!!” আমি সবার জন্য অনেক আনন্দ নিয়ে আসলাম কিন্তু সাথে নিয়ে আসলাম একটা হতাশা যা এখন কেবল এক বিন্দু বৃষ্টি আমি জানি যা দিনে দিনে আমাকে বন্যায় ভাসিয়ে নিয়ে যাবে!

আমি এখন শিশু, তবু আমি বুঝি আদর ভালবাসা। আমি বুঝি সুন্দর কি (চারপাশ দেখে যা শিখেছি)। ঈদে সব বান্ধবীদের সাথে যখন বাইরে যাই, অন্য দের মত কেউ আমার গাল টিপে বলেনা “কি ফুটফুটে মেয়ে”!! একি জামা দুজন পড়ি তবু কেউ আমাকে বলেনা “একদম পরীর মত লাগছে”!! পাঁচ জনের মধ্যে কোলে নিয়ে আদর করার মত আমি একজন হইনা!!! আমি বুঝতে শিখি আমি সাধারন, আমি সাধারন, অতি সাধারন!

আমি এখন কিশোরী।নিজেকে আমার রঙ্গিন প্রজাপতি মনেহয়।এখন চোখে অজস্র লাল নীল স্বপ্ন। অদ্ভুত ভাললাগা, মুচকি হাসি, আর
অনেক চাওয়া। আমার বান্ধবীদের মত আমার জন্যেও এক রাশ গোলাপ নিয়ে কেউ দাঁড়িয়ে থাকবে স্কুলের গেটে! আমাকে এক পলক দেখার জন্য আমার জানালায় উকি দেবে, বিশাল প্রেমপত্র নিয়ে বোকার মত আমার সামনে দাঁড়িয়ে থাকবে!!

আমি অপেক্ষায় থাকি, সময় চলে যায়… কেউ আসেনা তাঁর ভালবাসা নিয়ে, কেউ ডাকেনা আমায়!!! আমার রঙ্গিন স্বপ্ন গুলো আমার ‘কালো’ রঙে ঢেকে যায়, সাদা কালো হয়ে যায় সব!!! কেউ যেন তাঁর অদৃশ্য হাত দিয়ে আমার ডানা কেটে দেয়!!! আর আমি কুঁকড়ে পড়ে থাকি একা, নিজেকে আমার ডানা পড়ে যাওয়া অসহায় আঁচা মনেহয়!

আমি এখন তরুণী। জীবন নিয়ে হাপিয়ে ওঠা এক তরুণী । নিজেকে নিজের মাঝে লুকিয়ে রাখা একজন। আমি টিভি দেখিনা রং ফরসাকারি ক্রিম এর অ্যাড দেখবনা বলে, আমি বান্ধুবিদের সাথে বের হইনা রূপচর্চা বিষয়ক একশ কথ শুনবনা বলে। আমি আমার ঘরের জানালাটা নিয়ে থাকি, আকাশে কালো মেঘ হলে আমার ভাল লাগে, রাত যত গভীর হয় আমার তত বেশি ভাল লাগে! চাঁদ টাকে আমার অসহ্য লাগে আজকাল, চাঁদ কে নিয়ে আদিখ্যেতাও অসহ্য লাগে। যারা রাতের মহাত্ব বোঝেনা তাদের চাঁদকে নিয়ে এত আদিখ্যেতা কিসের শুনি!!! আমাকে নিয়ে আমার সময় ভালই কেটে যায়।

শুধু মাঝে মাঝে পাত্র পক্ষের সামনে গিয়ে জড় পদার্থের মত বসেই থাকতে হয় প্রায় প্রায়।কিন্তু কিছুই হয়না, একজন আসে তো আর একজন যায়!! কেউ ভদ্রতা করে মুখ ফুটিয়ে কিছু বলেনা, কিন্তু আমি তো জানি কেন!! আজকাল বড্ড হাসি পায় আমার, এসব আর কিছু মনেহয়না। আমার মা খালারা যখন পাউডার মাখিয়ে আমাকে ফরসা করার ব্যর্থ চেষ্টা করে তখন আমার আরও বেশী হাসি পায়। আমি মনে মনে হাসি! আগে বলতাম, না করতাম, এখন আর কিছু বলিনা। শুধু দেখি, পাত্র পক্ষের চোখে আমার জন্য করা দ্বিধা টা দেখি। কি ভাবছেন??? আবার কুঁকড়ে যাচ্ছি??? হাহাহা, নাহ এখন আর কুঁকড়ে যাইনা। কেন শুনবেন????

কারন আমি সুকন্যা। কারও রাজকন্যা হতে পারিনি, কারও স্বপ্নকন্যাও হওয়া হয়নি আমার, কিন্তু আমি চিৎকার করে বলতে পারি আমি সুকন্যা। সব রাজকন্যা স্বপ্নকন্যাদের থেকে অনেক বেশি সুকন্যা। আর আমি জানি আমার মতই আমার জন্য একজন সুপাত্র আছে, আমি জানি সে আমাকে ভালবাসবে, আমার রং এর উর্ধে গিয়ে।

না, আমার যোগ্যতায় আমার ক্ষমতায় মুগ্ধ হয়ে না, শুধু আমার ভালবাসায়। আমি জানি সে আসবে। আমি জানি সে এসে আমাকে এই ‘কালো’ (যা শিখেছি) পৃথিবী থেকে দূরে নিয়ে যাবে। আমি জানি আমি আবার চাঁদ কে ভালবাসতে শিখব, আমি আবার প্রজাপতি হব, আমি জানি আমি পারব কারন আমি সুকন্যা তাই।

Share.

Leave A Reply