জেনে নিন গর্ভকালে গ্যাসের সমস্যা? দূর করুন ৭টি উপায়ে

0

গর্ভকালটা প্রত্যেক নারীকেই শারীরিক কিছু সমস্যার মধ্যে দিয়ে পার করতে হয়। মুড পরিবর্তন, রক্ত স্বল্পতা, মানসিক শারীরিক সমস্যার সাথে সাথে গ্যাস হওয়া, বুক জ্বালাপোড়া করার সমস্যা দেখা দেয়। এইসময় শরীরের প্রজেস্টেরন নামক হরোমন বৃদ্ধি পায় যা পেটে গ্যাস সৃষ্টি করে। এমনকি এটি হজমক্ষমতা হ্রাস করে বমি বমি ভাব, পেট ফাঁপা সমস্যার উদ্ভব করে। এছাড়া খাবারের অনিয়ম, ভাজা-পোড়া খাবার বেশি খাওয়া, খাদ্যাভাসের পরিবর্তন ইত্যাদি দায়ী পেটে গ্যাস হওয়ার জন্য। এই সেনসিটিভ শারীরিক অবস্থায় ওষুধ গ্রহণে কিছুটা সাবধানতা অবশ্যই অবলম্বন করা উচিত। তাই ওষুধ গ্রহণের পরিবর্তে ঘরোয়া উপায়ে গ্যাসের সমস্যা সমাধান করার চেষ্টা করুন। আসুন, জেনে নিই কিছু ঘরোয়া উপায়।

১। আদা

বমি বমি ভাব, পেটের গ্যাস ও বদহজমের সমস্যা দূর করতে আদা বেশ কার্যকর। আদাতে জিনজারলোস এবং শাগোলোস নামক দুটি উপাদান রয়েছে যা পেটের সমস্যা দূর করে থাকে। একটি আদা কুচি এক কাপ পানিতে জ্বাল দিন। এর সাথে আপানর পছন্দমত লেবু বা মধু যোগ করতে পারেন। জ্বাল হয়ে গেলে এটি চুলা থেকে নামিয়ে ফেলুন। খাবার খাওয়ার আগে অথবা পরে এটি পান করুন।

২। প্রচুর পানি পান

পানি সবচেয়ে ভাল উপশম। চেষ্টা করুন দিনে আট থেকে দশ গ্লাস পানি পান করার। পানির পরিবর্তে তরল জাতীয় খাবার যেমন যেকোন ফলের রস (আঙ্গুর, কমলার, আপেল, ডাব ইত্যাদি) পান করতে পারেন। পানির পরিমাণ বেশি এমন সবজি, ফলও খেতে পারেন।

৩। অল্প খাওয়া

একসাথে অনেক খাবার না খেয়ে অল্প অল্প পরিমাণে বার বার খাওয়া যেতে পারে। গ্যাসের সমস্যা এড়াতে চাইলে অল্প অল্প করে বার বার খাবার খান। অনেক সময় বেশি খাবার পাকস্থলী হজম করতে পারে না। অল্প পরিমাণ খাবার হজম করা সহজ হয়।

৪। ক্যামোমিলের চা

এক কাপ পানিতে একটি ক্যামোমিলের টি ব্যাগ দিয়ে চা তৈরি করুন। এটি কিছুটা ঠান্ডা হলে পান করুন। এরসাথে আপনি চাইলে মধু অথবা লেবুর যোগ করতে পারেন। দুধ না মেশানোই ভাল। অনেক সময় দুধ গ্যাস সৃষ্টি করে থাকে।

৫। চলাফেরা করা

অনেকেই গর্ভকালে হাঁটাচলা করা কমিয়ে দেন। এই কাজটি করা উচিত নয়। প্রতিদিন নিয়ম করে কমপক্ষে ৩০ মিনিট হাঁটুন। এটি শুধুমাত্র খাবার হজমে সাহায্য করবে না, এরসাথে মাংসপেশী সচল রাখবে। অন্য যেকোন ব্যায়াম করার পূর্বে চিকিৎসকের পরামর্শ গ্রহণ করা উচিত।

৬। ভাল করে চিবিয়ে খাবার খাওয়া

খাবার আস্তে আস্তে এবং ভালোভাবে চিবিয়ে খাওয়া উচিত। খাবার দ্রুত খাওয়ার ফলে হজমের সমস্যা হয়। যা গর্ভাবস্থায় বুক জ্বালাপোড়া বাড়িয়ে দেয়।

৭। মেথি

এক গ্লাস পানিতে এক মুঠো মেথি সারারাত ভিজিয়ে রাখুন। পরের দিন সকালে মেথি ফেলে দিয়ে পানি পান করুন। এটি গ্যাস কমিয়ে দেওয়ার সাথে সাথে পেটের ব্যথা কমিয়ে দেয়।

Share.

Leave A Reply