পুরুষ হয়েও গর্ভে ধারন করেছেন তিন সন্তান! (ভিডিওসহ)

0

এমন কিছু ঘটনা আমাদের চারপাশে ঘটে চলেছে প্রতিনিয়ত যা বিশ্বাস করতেও কষ্ট হয়। সেরকমেরই একটি ঘটনা হল পুরুষ এরে বাচ্চা জন্ম দেওয়ার খবর। সৃষ্টির আদি থেকে আমরা জানি বাচ্চা জন্ম দেওয়ার ক্ষমতা সৃষ্টিকর্তা কেবল মেয়েদেরই দিয়েছেন। কিন্তু প্রকৃতিতে আমরা বিভিন্ন ব্যাতিক্রম দেখতে পাই। সেরকমই একটি ব্যাতিক্রমি ঘটনা ভিডিও ও রেফারেন্সসহ আপনাদের সামনে উপাস্থাপন করতে যাচ্ছি।

যাই হোক আসল ঘটনায় আসা যাক। বিশ্বের প্রথম পুরুষ মা হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে আমেরিকার আরিজোনা রাজ্যের থমাস বেটি নামের এক ব্যাক্তি। তার স্ত্রী ন্যান্সি এবং তিন সন্তান নিয়ে তিনি এখন আরিজোনায় বসবাস করছেন। থমাস বেটির সন্তান জন্ম দেওয়ার বিষয়টি এখন সারা পৃথিবীতে আলোচনার মূল বিষয়।

থমাস যদিও জন্ম থেকে পুরুষ নন। তার জন্ম হয়েছিল একজন নারী হিসেবে। তখন তার নাম ছিল ট্রেসি। কিন্তু থমাস সব সময় নিজেকে পুরুষ হিসেবে দেখতে চাইতেন। থমাস বিশ বছর বয়স থেকে টেস্টোস্টেরন হরমোন ইনজেকশন নেওয়া শুরু করেন যা তার দাড়ি গোফ জন্মাতে, কন্ঠ পরিবর্তন করতে এবং তার জননাঙ্গ পরিবর্তন করার কাজ করবে। ২০০২ সাথে থমাস তার স্তন অপারেশনের মাধ্যমে অপসারনের মাধ্যমে বৈধভাবে একজন পুরুষে রুপান্তরিত হন।

কিন্তু তার স্ত্রীর গর্ভধারন ক্ষমতা না থাকার কারনে থমাস তার জননাঙ্গ ও জরায়ু রেখে দেন যাতে পরবর্তীতে এই দম্পত্তি বাচ্চা লাভ করতে পারে। থমাস তার স্ত্রীকে জানায় যে সে বাচ্চা জন্ম দিতে চায়, এটা তার স্বপ্ন। যদিও থমাসের জানা ছিল না সে এটা কীভাবে করবে। দীর্ঘ আট বছর হরমোন নেওয়ার পর থমাস হরমোন নেয়া বন্ধ করেন যাতে তিনি বাচ্চা ধরন করতে পারেন। কিন্তু ততদিনে তার দারিগোফ স্থায়ীভাবে তার শরীরের অংশ হয়ে গেছে। থমাস বেটি দম্পত্তি একজন অপরিচিত স্পার্ম ডোনারের কাছ থেকে স্পার্ম সংগ্রহ করেন। এবং তা থমাসে শরীরে প্রবেশ করানো হয়। এবং অবশেষে ২০০৭ সালে থমাস বেটি তার প্রথম কন্যাসন্তান সুসানকে জন্ম দেন। পরবর্তীতে থমাস অস্টিন ও জেনসেন নামে আরো দুই পুত্র সন্তানের জন্ম দেন।

নিউজটির রেফারেন্স নিচে দেয়া হল।

Share.

Leave A Reply