প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখান করায় স্কুল ছাত্রীকে হত্যা

0

গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার নয়াপাড়া এলাকায় মুন্নি আক্তার (১৫) নামের এক স্কুল ছাত্রীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তবে স্কুল ছাত্রীর মৃত্যু নিয়ে সৃষ্টি হয়েছে ধুম্রজাল। আজ মঙ্গলবার ভোরে গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার নয়াপাড়া কুতুবদিয়া এলাকায় চাঞ্চল্যকর এ হত্যাকান্ডটি ঘটে। নিহত মুন্নি কালিয়াকৈর উপজেলার নয়াপাড়া কুতুবদিয়া এলাকার শহীদ মিয়ার মেয়ে এবং সে উপজেলার চাপাইর বি বি উচ্চ বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণীর ছাত্রী ছিল।

 নিহতের মা ইয়ারা বেগম জানান, সোমবার রাতে এশার নামাজের পর পাশের আক্কাছের বাড়িতে জন্মদিনের অনুষ্ঠানে আমার ছোট মেয়ে মুন্নিকে নিয়ে দাওয়াত খেতে যাই। পরে জন্মদিনের অনুষ্ঠান শেষে মুন্নিকে নিয়ে বাসায় ফিরে আসি। পরে রাত ১১ টার দিকে মুন্নি তার নিজ ঘরে ঘুমাতে যায়। পরে ভোরে ফজর নামাজ আদায়ের জন্য আমি ঘুম থেকে জাগ্রত হই। এমন সময় মুন্নির ঘর থেকে বখাটে আরাফাত সরকারকে বের হতে দেখি। পরে তাকে ডাক দিলে সে দৌড়ে পালিয়ে যায়। পরে সন্দেহ হলে ঘরের ভিতর প্রবেশ করে দেখতে পাই মুন্নির গলায় ওড়না পেচানো অবস্থায় বিছানার উপর তার নিথর দেহ পরে আছে। পরে আমার ডাক চিৎকারে আমার বড় মেয়ে, ছেলে ও ছেলের বউ ও মুন্নির বাবা এসে একই অবস্থায় মুন্নিকে দেখতে পায়।

নিহতের মা ইয়ারা বেগম আরো বলেন, এলাকার প্রভাবশালী আতাউর সরকারের ছেলে আরাফাত সরকারের প্রেমের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় রাতের গভীরে আমার মেয়েকে শ্বাসরুদ্ধ করে হত্যা করা হয়েছে। ওই ছেলে স্কুলে যাওয়া আসার পথে প্রায়ই আমার মেয়েকে বিভিন্ন ভাবে উত্তাক্ত করত। তার সাথে সম্পর্ক না করলে তাকে মেরে ফেলবে বলেও অনেক সময় হুমকি দিয়ে আসছিল। ওরা আমার মেয়েকে বাঁচতে দিলনা। আমি আমার মেয়ে হত্যার দৃষ্টান্তমূলক বিচার চাই।

 নিহত মুন্নির বড় বোন মলি জানান, ওই বখাটে আরাফাত আমার ছোট বোন নিহত মুন্নিকে প্রায়ই রাস্তা ঘাটে বিরক্ত করতো। বেশ কিছুদিন আগেও সে মাতাল অবস্থায় মুন্নিকে প্রেমের প্রস্তাব দেয়। নিহত মুন্নি বখাটে আরাফাতের প্রস্তাবে সাড়া না দেয়ায় প্রায় সময়ই মুন্নিকে হত্যা, এসিড নিক্ষেপসহ আরো জঘন্য কাজ করার হুমকি দিয়ে আসছিল। পরে এ ব্যাপারে ওই বখাটের পরিবারের কাছে অভিযোগ করলে তারা তার ছেলের ব্যপারে কোন কার্যকরী ব্যবস্থা গ্রহন করেনি বরং তাদের ছেলেকে উস্কিয়ে দিয়ে বলেন “যাই করস না করস কোন কাজ করতে গিয়ে ধরা পড়িস না বাকিটা আমি দেখবো”।

নিহতের বাবা শহীদ বেপারী জানান, আমার মেয়েকে ওরা বাঁচতে দিলনা। জানিনা আমার মেয়ে হত্যার সঠিক বিচার পাব কিনা। ওরাতো প্রভাবশালী ওদের কারনে থানা পুলিশ আমার মামলা নিবে কিনা তাও আমি জানিনা।

কালিয়াকৈরে থানার উপ-পরিদর্শক (এস আই) মোশারফ হোসেন সময়ের কণ্ঠস্বরকে জানান, খবর পেয়ে সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য গাজীপুর শহীদ তাজ উদ্দিন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।

কালিয়াকৈর থানার ওসি (তদন্ত) রফিকুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে সময়ের কণ্ঠস্বরকে জানান, এ ঘটনায় থানায় একটি মামলা প্রক্রিয়াধীন। প্রাথমিক ভাবে ধারণা করা হচ্ছে এটি একটি আত্মহত্যা। তবে ময়নাতদন্তের রিপোর্ট হাতে না পাওয়া পর্যন্ত সঠিক ভাবে কিছু বলা যাচ্ছে না।

Share.

Leave A Reply