কিভাবে দূর করবেন পায়ের পাতার ব্যথা

0

 নানারকম কারণে অনেক সময় হঠাত্ করে পায়ের পাতায় ব্যথা অনুভব করতে পারেন আপনি। সেটা হতে পারে অতিরিক্ত হাঁটার মতন আপাতদৃষ্টিতে বুঝতে পারার মতন কোন কারণ, আবার হতে পারে অন্যকিছুও। তবে উৎপত্তি যেখান থেকেই হোক না কেন, প্রতিদিনের বিভিন্ন কাজে ব্যবহৃত শরীরের এই অপরিহার্য অঙ্গটিকে প্রচন্ড ব্যথা থেকে নিমিষে মুক্তি দিতে পারেন আপনি। কী করে? চলুন জেনে নিই।

১. পানি চিকিৎসা: ব্যথাযুক্ত পায়ের পাতার ব্যথাকে সারিয়ে তুলতে আপনার জন্য সবচাইতে সহজ চিকিৎসাটি হতে পারে পানি চিকিৎসা। এক্ষেত্রে দুটি পাত্র নিন। তাদের একটিতে ঠান্ডা পানি ও অন্যটিতে সহ্য করতে পারার মতন গরম পানি রাখুন। এবার প্রথমে ঠান্ডা পানিতে পাঁচ মিনিট নিজের পায়ের পাতা ডুবিয়ে রাখুন। এরপর পাঁচ মিনিটের জন্য পা ডোবান গরম পানিতে। ব্যস! দূর হয়ে যাবে আপনার পায়ের পাতার ব্যথা একটু হলেও। তবে বেশি ভালো ফল পেতে পেপারমিন্ট চা বানিয়ে তাতেও ডুবিয়ে রাখতে পারেন আপনার পায়ের পাতা।

২. বল চিকিৎসা: পায়ের পাতায় প্রচন্ড ব্যথা অনুভূত হলে একটি বল নিন। আর সেটাকে মাটিতে রেখে তার ওপর দিয়ে পায়ের পাতাকে পরিচালনা করুন বারবার। অনেকটা গড়িয়ে যাওয়ার মতন। এছাড়াও তিন টেবিল চামচ তিলের তেল ও তিন ফোঁটা ক্লোভ তেল একসাথে মিশিয়ে সেটা দিয়েও আপনার পায়ের পাতায় ম্যাসাজ করতে পারেন আপনি। এতে করে পায়ের পাতার রক্ত চলাচল স্বাভাবিবক হবে আর কমে যাবে ব্যথা।

৩. পেন্সিল চিকিৎসা: একজন মানুষের শরীরের মাথা থেকে পা পর্যন্ত পুরোটাকে ঠিকঠাক রাখার অন্যতম উপায় হচ্ছে সেগুলোকে নাড়ানো। একটু শরীরচর্চা করা। ব্যয়াম করা। আর তাই পায়ের পাতার ক্ষেত্রেও কেন সেটা বাদ থাকবে? তাই পায়ের পাতার ব্যায়ামের জন্যে প্রথমে মেঝেতে কিছু পেন্সিল ফেলুন। এরপর সেগুলোকে তুলে ফেলুন। তবে কেবল পায়ের আঙ্গুলের সাহায্যে। পেন্সিল ছাড়াও এক্ষেত্রে লাঠি বা অন্যকিছু ব্যবহার করতে পারেন আপনি।

৪. দেয়াল চিকিৎসা: এটি কেবল হিলের করণে তৈরি হওয়া পায়ের ব্যথার ক্ষেত্রেই কার্যকরী। মূলত, ব্যথা দূর করাই নয়, এর আরেকটি উদ্দেশ্য হিলের সাথেই পাকে মানিয়ে নেওয়ার। এক্ষেত্রে হিল পায়ে থাকা অবস্থাতেই দেয়াল থেকে তিন ফুট দূরত্বে দাঁড়ান। এবার আপনার দুটো হাত দেয়ালে সোজা করে লাগান। ডান পাকে সামনে নিয়ে আসুন আর বাঁ পাকে সোজাই রেখে দিন। এভাবে খুব অল্প করে হলেও হিলের সাথে নিজের পায়ের ব্যথার সম্পর্কটাকে ভাঙতে পারবেন আপনি।

Share.

Leave A Reply