সকাল কিংবা বিকালের নাস্তায় ঝটপট বানিয়ে ফেলুন মজাদার নারকেলি পিঠা।

0

নারকেলি পিঠা! (চালের গুড়া থাকলে এই পিঠাকে পুলি পিঠা বলা যেত)। বিকালের নাস্তায় কিংবা মেহমানদারীতে এই পিঠা কাজে লাগতে পারে। আপনার মেহমানগন খেয়ে হয়ত বলে ফেলবেন, ইস কত দিন পরে পিঠা খেলাম! হা হা হা…। বছর বিশেক তো হবেই!

উপকরন

চার ধাপে এই পিঠা বানাতে হবে। ধাপের কথা শুনে ভয় পাবেন না। ধাপ অনুসারে উপকরন গুলো দেয়ার চেষ্টা করলাম।

১। পিঠার মন্ড প্রস্তুত

– ময়দা দেড় কাপ
– একটা ডিম
– বেকিং পাউডার, এক চা চামচ
– সামান্য লবন
– কুসুম গরম পানি
– দুই টেবিল চামচ তেল

২। পিঠার ভিতরের পুর প্রস্তুত

(আমরা একবারে অনেকখানি পুর বানিয়ে রেখেছিলাম, যা পরবর্তিতেও ব্যবহার করা হয়েছিল)
– নারিকেল কুরানো
– খেজুরের গুড় বা চিনি
– এলাচি
– দারচিনি
– পানি (পরিমান মত, নূতনদের জন্য)

৩। পিঠা প্রস্তুত
– সামান্য ময়দা (রুটি বেলার জন্য)

৪। তেলে ভাঁজা
– ডুবো তেলে ভাঁজার জন্য পরিমান মত তেল

প্রনালী

চার ধাপ গুলো খুব সহজ ভাবে আপনাদের জন্য উপস্থাপন করা হল।
১। পিঠার মন্ড/কাই প্রস্তুত

একটা বাটিতে ময়দা নিন, ডিম ভেঙ্গে দিন, বেকিং পাউডার ও লবন দিন।


ভাল করে মিশিয়ে নিয়ে কুসুম কুসুম গরম পানি দিয়ে আস্তে আস্তে কাই করুন।


এই পর্যায়ে এসে যাবে। বেশি নরম করে ফেলা যাবে না।


এবার তেল দিয়ে ভাল করে মেখে (যত মিশাবেন তত ভাল মন্ড/কাই হবে) একটা ঢাকনা দিয়ে ঢেকে রাখুন। আধ ঘন্টা হলে ভাল।


আধা ঘন্টা পরে মন্ড/কাই ফুলে এই রকম হয়ে যাবে। পিঠার রুটি এই মন্ড/কাই দিয়েই বানাতে হবে।

২। পিঠার ভিতরের পুর প্রস্তুত

হাড়িতে গুড় বা চিনি, দারচিনি, এলাচি ও নারিকেল কুরানো এক সাথে দিয়ে মৃদু আঁচে গুড় বা চিনি গলা পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। গলে গেলে মাধ্যম আঁচে ভাল করে নাড়িয়ে নিলেই এই পুর হয়ে যাবে। (নুতন যারা রান্না করবেন তারা এই মিশ্রনে হাফ কাপ পানি দিয়ে নিতে পারেন, চিনি বা গুড় পুড়ে যাবার সম্ভবনা থাকবে না!)

৩। পিঠা প্রস্তুত

কাই থেকে ছোট গোলা নিয়ে রুটি বেলে নিন। একটা রুটিকে চার খন্ডে ভাল করুন। ইচ্ছা মত ডিজাইন করে নিন। (আমরা একটা ডিজাইন দেখিয়ে দিচ্ছি। ছবি দেখেই আশা করছি বুঝতে পারবেন।)


দেখুন কি করে ভাঁজ করা হচ্ছে। এভাবে কিছু বানিয়ে জমা করে রাখুন।

৪। তেলে ভাঁজা

এবার কড়াইতে তেল গরম করে পিঠা গুলো ভেঁজে নিন।


ডিজাইন আপনার ইচ্ছা! অর্ধচন্দ্রাকার!


এমন কি ফুলমুন/ পূর্নিমার চাঁদ কিংবা গোলাকার বৃত্ত করতে পারেন।

পরিবেশনাঃ

গরম গরম পরিবেশন করুন। ছেলে বুড়ো সবাই পছন্দ করবে বলে আমরা বিশ্বাস করি।

(বাজারে পিঠার ছাঁচ এবং সাইড কাটার পাওয়া যায়, দাম তেমন বেশি নয়।)

Share.

Leave A Reply