যে ১০টি কারণে মাশরুম স্বাস্থ্যের জন্য খুবই উপকারী সবজি

0

সাম্প্রতিক এক গবেষণায় জানা যায় যে, ছয়টি খাদ্যের একটি হচ্ছে মাশরুম যা আমাদের প্রতিদিন খাওয়া উচিৎ। এই বন্ধুত্বপূর্ণ ছত্রাকটি মানুষের স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী উপাদান সমৃদ্ধ। মাশরুমে পেনিসিলিন নামক অ্যান্টিবায়োটিক থাকে যা মানুষের জন্য আশীর্বাদ স্বরূপ। এটি খেতে খুবই মজা। তবে শুধু অর্গানিক বা জৈব ভাবে উৎপন্ন মাশরুম খাওয়ার উপযুক্ত।

বুনো জায়গায় উৎপন্ন মাশরুম অবশ্যই গ্রহণ করা নিষেধ। মাশরুম সালাদ হিসেবে, ভেজে, সূপ করে বা রান্না করে খাওয়া যায়। মিশরীয়রা মনে করে মাশরুম অমরত্ব দান করতে পারে।

প্রাচীন রোমানরা মাশরুমকে “ফুড ফর দি গড” মনে করতো। চীন, রাশিয়া ও মেক্সিকোর মানুষের প্রচলিত ধারণা হচ্ছে মাশরুম অতিমানবীয় শক্তি প্রদান করতে সক্ষম। আসুন তাহলে জেনে নেই মাশরুমের নানাবিধ গুণাবলী।

১। রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে

মাশরুমে উচ্চমাত্রার আঁশ থাকে, সোডিয়ামের পরিমাণ কম থাকে এবং প্রচুর পরিমাণে পটাসিয়াম থাকে যা রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করে এবং হৃদপিণ্ডের কাজে সহায়তা করে।

২। ওজন নিয়ন্ত্রণে সহায়তা করে

মাশরুমের ফাইবার বা আঁশ পাকস্থলি দীর্ঘক্ষণ ভরা রাখতে সাহায্য করে। মাশরুম  রক্তে চিনির পরিমাণ নিয়ন্ত্রণ করে এবং ওজন কমাতে সহায়তা করে। উচ্চ ফ্যাট সমৃদ্ধ লাল মাংসের পরিবর্তে মাশরুম গ্রহণ করলে ওজন কমানো সহজ হয়। FASEB  তে প্রকাশিত এক গবেষণায় জানা যায় যে, লাল মাংসের পরিবর্তে সাদা মাশরুম গ্রহণ করলে ওজন কমে।

৩। ত্বক সুস্থ রাখে

মাশরুম নামের ছত্রাকে নিয়াসিন ও রিবোফ্লাবিন থাকে যা ত্বকের জন্য অত্যন্ত উপকারি। এই ছত্রাকে ৮০-৯০ ভাগ পানি থাকে যা ত্বককে নরম ও কোমল রাখে।

৪। অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট

মাশরুমে পলিফেনল ও সেলেনিয়াম নামের অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট থাকে। এতে মানুষের শরীরের জন্য অত্যাবশ্যকীয় অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সালফার ও থাকে। এই অত্যাবশ্যকীয় অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট গুলো মারাত্মক কিছু রোগ যেমন- স্ট্রোক, স্নায়ুতন্ত্রের রোগ এবং ক্যান্সার থেকে শরীরকে রক্ষা করে।

৫। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে

মাশরুম মানবদেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে। শিটাকে মাশরুম দৈনন্দিন কিছু অসুখ যেমন- কফ ও ঠান্ডা থেকে রক্ষা করে।

৬। ভিটামিন ডি ধারণ করে

সূর্যের আলোর সংস্পর্শে যে মাশরুম উৎপন্ন হয় তাতে প্রচুর ভিটামিন ডি থাকে যা ক্যালসিয়াম ও ফসফরাসের শোষণ বৃদ্ধিতে সহায়তা করে।

৭। ক্যান্সারের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে

নিয়মিত মাশরুম ভক্ষণ ব্রেস্ট ক্যান্সার ও প্রোস্টেট ক্যান্সার কমায়। মাশরুমের ফাইটোকেমিক্যাল টিউমারের বৃদ্ধিতে বাঁধার সৃষ্টি করে।

৮। স্নায়ুতন্ত্র

মাশরুমের ভিটামিন বি স্নায়ুর জন্য উপকারি এবং বয়সজনিত রোগ যেমন- আলঝেইমার্স রোগ থেকে রক্ষা করে।

৯। ডায়াবেটিস

মাশরুম গ্রহণ করলে রক্তে চিনির পরিমাণ নিয়ন্ত্রণে থাকে। মাশরুমে এনজাইম ও প্রাকৃতিক ইনসুলিন থাকে যা চিনিকে ভাঙ্গতে পারে।

১০। পরিপাক

মাশরুমের ফাইবার ও এনজাইম হজমে সহায়তা করে। এটি অন্ত্রে উপকারি ব্যাকটেরিয়ার কাজ বৃদ্ধিতে সাহায্য করে এবং কোলন এর পুষ্টি উপাদান শোষণকেও বাড়তে সাহায্য করে।

এতো অধিক গুণ সম্পন্ন মাশরুমকে আপনার খাদ্য তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করে সুস্থ থাকুন। বর্তমানে চীন বাণিজ্যিক ভাবে সবচেয়ে বড় মাশরুম উৎপাদন কারী দেশ।

Share.

Leave A Reply