জানেন কি দেহের ফাটা দাগ দূর হবে ভিক্স ব্যবহারে

0

নারী কিংবা পুরুষ, কারো জন্যই শরীরের ফাটা দাগ শোভনীয় কিছু নয়। দেহের সৌন্দর্য নষ্ট করতে ফাটা দাগ বা স্ট্রেচ মার্কই যথেষ্ট। হয়ত, প্রিয় হাতা কাটা পোশাকটা পরতে পারছেন না, কিংবা বন্ধুরা হাসাহাসি করছে আপনাকে নিয়ে। সবকিছু বাদ দিয়ে নিজের শরীরে এমন বেমানান দাগগুলো তো নিজের কাছেই ভালো লাগেনা। তাহলে আজ চলুন জেনে নেই কি করে কমাতে পারেন এই দাগ।

কেন হয় শরীরের ফাটা দাগঃ সাধারণত স্ট্রেচ মার্ক দেখা দেয় হঠাৎ করেই দেহের ওজন বৃদ্ধি পেলে বা হঠাৎ ওজন খুব কমে গেলে। সব চেয়ে বেশি ফাটা দাগ হয়ে থাকে নারীদের গর্ভকালীন সময়। মূলত আমাদের দেহের চামড়া নির্দিষ্ট পরিমাণ প্রসারিত বা সংকুচিত হতে পারে। কিন্তু, খুব কম সময়ে প্রসারণ বা সংকোচন হলে দেহের চামড়া ফেটে যায়।

ফাটা দাগ সবচেয়ে বেশি হয়ে থাকে দেহের মাংসল স্থানগুলোতে। এই যেমন পেটের নিন্মভাগ, উরু, নিতম্ব, হাতের বাহু, কাঁধ, স্তন এবং মেরুদন্ডের নিচের দিকে। প্রথমিক পর্যায়ে এ দাগগুলো হালকা থাকলেও সময়ের সাথে বেশ গাঢ় হয়ে যায়। এবং, দেখতে খুব বাজে আকার ধারণ করে।

কিভাবে মুক্তি মিলবে এসব ফাটা দাগ থেকেঃ ফাটা দাগ দূর করার জন্য আজ আপনাদের ভিন্ন এক বস্তুর সাথে পরিচয় করিয়ে দিবো। ভিক্স তো নিশ্চয়ই সবাই চেনেন। জি, ঠান্ডা কাশি থেকে মুক্তি পেতে, মাথা ব্যাথা বা কোমর ব্যাথা থেকে মুক্তি পেতে যে ভিক্স ব্যবহার করে থাকেন সেটির কথাই বলছি। এই ভিক্সই আপনার দেহ থেকে ফাটা দাগ দূর করবে।

ভিক্স তৈরি হয় মেনথল, ইউক্যালিপটাস তেল, কর্পূর, এরস গাছের পাতার তেল ইত্যাদি দিয়ে। এসব পুরু তেল, মেনথল, শীতলীকরণ উপাদান দেহের ফাটা দাগ দূর করতে কার্যকরী ভূমিকা পালন করে। একই সাথে ভিক্স দেহের ত্বক কোমল ও নমনীয় করে এবং ত্বকের রুক্ষতা দূর করে। এটি দেহ থেকে ৬০-৭০% ফাটা দাগ দূর করে থাকে।

কিভাবে ব্যবহার করবেনঃ অল্প একটু ভিক্স আঙুলে নিয়ে ফাটা দাগের উপর আলতো করে ম্যাসেজ করুন। এবার এক টুকরো পাতলা কাপড় দিয়ে ফাটা অংশটি মুড়ে নিন। এভাবে সারারাত রেখে দিন। প্রতিদিন রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে এই কাজটি করুন। ধীরে ধীরে দেখবেন ফাটা দাগগুলো মলিন হয়ে যাবে।

এছাড়াও যা করতে পারেনঃ এলোভেরা বা ঘৃতকুমারী দেহের যে কোন দাগ দূর করতে বেশ কার্যকরী ভূমিকা রাখে। এলোভেরা থেকে শাঁস বের করে ফাটা দাগের উপর চক্রাকারে ম্যাসেজ করুন। প্রতিদিন ২০/২৫ মিনিট এভাবে রাখলে উপকার পাবেন।

Share.

Leave A Reply